ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭ | ৫ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

যশোরে সাড়ম্বরে ‘বিশ্ব বাবা দিবস’ উদযাপিত


যশোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৫:১৫ পিএম, ১৮ জুন ২০১৭, রোববার | আপডেট: ০৫:৩০ পিএম, ১৮ জুন ২০১৭, রোববার
যশোরে সাড়ম্বরে ‘বিশ্ব বাবা দিবস’ উদযাপিত

যশোরে দ্বিতীয়বারের মত সাড়ম্বরে ‘বিশ্ব বাবা দিবস উদযাপিত হয়েছে। রোববার অনুষ্ঠানে তিন বাবাকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। বাবা-সন্তানের এই সমাবেশে বাবাকে নিয়ে নানা অনুভূতিতে মেতে ওঠেন সবাই। ছিলো বাবা ও সন্তান সমাবেশ, প্রাণবন্ত আড্ডা, গান ও কবিতায় সাজানো বর্ণাঢ্য আয়োজন।

যশোর ইনস্টিটিউটের আলমগীর সিদ্দিকী হলে সকাল সাড়ে ১১টায় ‘বিশ্ব বাবা দিবস’ উদযাপন হয়েছে। ‘বিশ্ব বাবা দিবস উদযাপন পর্ষদ-২০১৭, যশোর’র উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ ও সূচনা বক্তব্য রাখেন সদস্য সচিব প্রণব দাস।

‘পর্ষদ’র আহ্বায়ক হারুণ অর রশিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি ছিলেন যশোর সরকারি সিটি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আবু তোরাব এম হাসান। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রবীণ শিক্ষক শ্রীতারাপদ দাস, যশোর সংবাদপত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মবিনুল ইসলাম মবিন এবং বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হাবিবা শেফা।
 
শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন যশোর জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তরিকুল ইসলাম তারু। বাবাকে নিয়ে অনুভূতি প্রকাশ করেন মো. মনিরুজ্জামান, সনাক যশোরের সাবেক সদস্য ডক্টর মুস্তাফিজুর রহমান, প্রেসক্লাব যশোরের দপ্তর সম্পাদক তৌহিদ জামান ও দৈনিক সমাজের কথা’র আইটি এক্সপার্ট ওয়াসিম হোসেন।



অনুষ্ঠানে সম্মাননাপ্রাপ্ত তিন বাবা হলেন যশোর পুরাতন কসবা ঘোষ পাড়ার বাসিন্দা ব্যাংকার মো. মনিরুজ্জামান, যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন মহাবিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহযোগী অধ্যাপক আবু তালেব ইসলাম ও যশোর ঝুমঝুমপুর এলাকার বাসিন্দা সেনাবাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট চৌধুরী মনিরুজ্জামান।

অনুষ্ঠানে পুনশ্চ যশোরের শিল্পীবৃন্দ জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন। উদ্বোধনী সংগীতে বিশ্ব কবি রবী ঠাকুরের গান ‘আজি শুভ দিনে পিতার ভবনে অমৃত সদনে চলো যাই...’ পরিবেশন করেন উদীচী যশোরের শিল্পীবৃন্দ। বাবাকে নিয়ে একক সংগীত পরিবেশন করে সুরবিতানের শিল্পী দেবাশীষ সরকার ও স্পন্দনের শিশু সিলভিয়া আফরোজ জয়ী। অনুষ্ঠানে বাবাকে উৎসর্গ করে ‘অনুভূতিতে বাবা’ প্রকাশ পর্বে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ১০ শিশুকে এবং ৫০ ঊর্ধ্ব বয়সী দুই সন্তানকে শুভেচ্ছা স্মারক ও সনদ প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাইফুজ্জামান পিকুল বলেন, ‘বাবা নির্ভরতা ও আস্থার প্রতীক। সন্তানের সাথে বাবার স্পর্শ যতো গাঢ় হবে, পারিবারিক বন্ধন ততো বাড়বে। আর পারিবারিক বন্ধন যতো দৃঢ় হবে, সমাজ থেকে অপরাধ প্রবণতা ততো কমবে। বাবা দিবসে সন্তন ও বাবাদের এই সমাবেশ আত্মার সম্পর্ককে আরও শক্ত করে তুলবে বলে আমার বিশ্বাস।’

অমৃতবাজার/প্রণব/রিজাউল/রেজওয়ান

Loading...