ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০ | ২৬ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিশু রুশদি আর মায়ের পর বাবা রনিও না ফেরার দেশে


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১১:১০ এএম, ০২ মার্চ ২০২০, সোমবার
শিশু রুশদি আর মায়ের পর বাবা রনিও না ফেরার দেশে

রাজধানীর ইস্কাটনে দিলু রোডের একটি ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ছেলে কেএম রুশদি ও স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসের মৃত্যুর পর এবার না ফেরার দেশে চলে গেলেন শহীদুল কিরমানী রনিও। সোমবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার। ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ নিয়ে ওই ভবনে অগ্নিকাণ্ডে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল পাঁচজনে। এর আগে রোববার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় জান্নাতুল ফেরদৌসের।

এ ছাড়া অগ্নিকাণ্ডের দিন ঘটনাস্থলেই মারা যায় তাদের একমাত্র সন্তান একেএম রুশদি। হাসপাতাল সূত্র জানায়, জান্নাতুল ফেরদৌসের শরীরের প্রায় ৯৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। শহীদুলেরও শরীরের অনেক অংশ পুড়ে যায়।

শহীদুল কিরমানী রনি পুলিশ প্লাজায় ‘ভিআইভিপি এস্টেট ম্যানেজমেন্ট’ নামে একটি কোম্পানির ফাইন্যান্স ম্যানেজার। আর তার স্ত্রী জান্নাত বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যাল লিমিটেডের অর্থ বিভাগে চাকরি করেন। তাদের বাড়ি নরসিংদীর শিবপুরের ইটনায়।
বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪টায় দিলু রোডে ওই ভবনের গ্যারেজে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর শিশু রুশদিসহ তিনজনের লাশ উদ্ধার করেছিল।

অমৃবাজার/এমএএন