ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নির্বাচন ঘিরে ৫৪ ঘণ্টা যান চলাচলে বিধিনিষেধ


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১১:৩৮ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার | আপডেট: ১১:৪১ এএম, ২১ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার
নির্বাচন ঘিরে ৫৪ ঘণ্টা যান চলাচলে বিধিনিষেধ ছবি- নির্বাচন ঘিরে ৫৪ ঘণ্টা যান চলাচলে বিধিনিষেধ

আগামী ১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন উপলক্ষে দুই সিটিতে যানবাহন চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে নির্বাচন কমিশন। বিধিনিষেধ অনুযায়ী আগামী ৩০ জানুয়ারি মধ্যরাত রাত ১২টা থেকে ২ ফেব্রুয়ারি ভোর ৬টা পর্যন্ত মোট ৫৪ ঘণ্টা মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ থাকবে।

গত ১৯ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্বাচন পরিচালনা-২ অধিশাখার উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবকে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে এই আদেশ কার্যকর করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, আগামী ৩০ জানুয়ারি মধ্যরাত (১২টা) থেকে ২ ফেব্রুয়ারি ভোর ৬টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে। অন্যদিকে, ভোটের আগের দিন মধ্যরাত অর্থাৎ ৩১ জানুয়ারি রাত ১২টা থেকে ১ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ থাকবে। ইসির নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা যানবাহনগুলো হলো বেবি ট্যাক্সি/অটোরিকশা, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ, ট্যাক্সি ক্যাব, কার (ব্যক্তিগত বাদে), বাস, ট্রাক, ট্যাম্পু।

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, মোটরসাইকেল ও বিভিন্ন যানবাহনের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী/তাদের নির্বাচনি এজেন্ট, দেশি/বিদেশি পর্যবেক্ষকদের (পরিচয়পত্র থাকতে হবে) ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা শিথিলযোগ্য। তাছাড়া নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত দেশি-বিদেশি সাংবাদিক (পরিচয়পত্র থাকতে হবে) ও নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শকের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।

এছাড়াও কতিপয় জরুরি কাজ যেমন- ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক ও টেলিযোগাযোগ ইত্যাদি কার্যক্রমে ব্যবহারের জন্য উল্লিখিত যানবাহন ও মোটরসাইকেল চলাচলের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।

চিঠিতে আরও বলা হয়, জাতীয় মহাসড়ক, বন্দর, জরুরি পণ্য, ওষুধ, খাদ্য ইত্যাদি দ্রব্যাদি সরবরাহসহ অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যানবাজন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা শিথিলের বিষয়ে প্রয়োজনীয় কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরশেন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় মহাসড়ক ছাড়াও আন্তঃজেলা বা মহানগর থেকে বাহির হওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, মহাসড়ক ও প্রধান প্রধান রাস্তার সংযোগ সড়ক বা ওই সব রাস্তায় যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা শিথিল করতে হবে। পাশাপাশি ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহৃত প্রাইভেটকারের (ভাড়ার গাড়িব্যতীত), প্রতিবন্ধী ভোটারদের সহায়তায় নিয়োজিত প্রাইভেট কার এই নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে বলেও উল্লেখ করা হয়।

অমৃতবাজার/এমআর