ঢাকা, শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

যে সব কারণে গ্রেফতার হল রাজীব


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৮:১০ এএম, ২০ অক্টোবর ২০১৯, রোববার
যে সব কারণে গ্রেফতার হল রাজীব

সন্ত্রাসবাদ, দখলদারিত্ব, টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসার সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীবকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


র‌্যাব সদর দফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইং পরিচালক লে. কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম এ তথ্য জানিয়েছেন।

শনিবার রাতে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপরীত পাশে ৮ নম্বর সড়কের ৪০৪ নং বাসায় অভিযান চালিয়ে রাজীবকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১। পরে সাংবাদিকদের এ তথ্য দেন তিনি।

সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, চলমান ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান শুরুর পর আত্মগোপনে ছিলেন রাজীব। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, দখলদারিত্ব, টেন্ডারবাজি, খুন, কিশোর গ্যাং, মাদক ও ডিশ ব্যবসা নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ রয়েছে। এসব সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তার বন্ধুর ওই বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি জানান, অভিযানকালে ওই বাসা থেকে ৭টি বিদেশি মদের বোতল, একটি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, তিন রাউন্ড গুলি, নগদ ৩৩ হাজার টাকা ও একটি পাসপোর্ট জব্দ করা হয়। অস্ত্রের কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারেননি রাজীব।

র‌্যাবের এ কর্মকর্তার ভাষ্যমতে,গেল ১৩ অক্টোবর থেকে ওই বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন রাজীব। আজ তাকে গ্রেফতার করা হলো। তবে তার বন্ধুকে আমরা পাইনি। তিনি দেশের বাইরে রয়েছেন।

সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, রাজীবের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে কি না, পাসপোর্ট নিয়েও কেন বন্ধুর বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন,দেশ থেকে পালানোর চেষ্টায় ছিলেন কি না-সবকিছু খতিয়ে দেখা হবে।

গ্রেফতারের পর ওই বাসাতেই রাজীবকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে তিনি কী বলেছেন-তা জানা যায়নি। এখন তাকে সঙ্গে নিয়ে তার মোহাম্মদপুরের বাসায় অভিযান চালাচ্ছে র‌্যাব-২।

র‌্যাব সূত্র জানায়, মোহাম্মদপুর শিয়া মসজিদ এলাকার মোহাম্মদীয়া হাইজিং সোসাইটির ১ নম্বর রোডে ৩৩ নম্বর বাসায় অভিযান চালাচ্ছে তারা।এটিই রাজীবের বাড়ি।রাত সাড়ে ১২টা দিকে এ অভিযান শুরু হয়।

অমৃতবাজার/ কেএসএস