ঢাকা, রোববার, ১৮ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

ছিনতাইকারীকে ধরে পুলিশে দিলো তরুণী


অমৃতবাজার রিপাের্ট

প্রকাশিত: ০৯:০৬ এএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
ছিনতাইকারীকে ধরে পুলিশে দিলো তরুণী

ছিনতাইকারীকে হাতেনাতে ধরে পুলিশের কাছে সোপর্দ করায় বিশেষ সম্মাননা পেয়েছেন অন্তরা রহমান নামের এক তরুণী। গত ১৭ অাগস্ট সাহসিক এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, বনশ্রীর বাসা থেকে যাত্রাবাড়ীতে আত্মীয়ের বাসায় যাচ্ছিলেন অন্তরা নামের ওই তরুণী।

যাত্রাবাড়ীর জনপদের রোডে রিকশায় করে পার হচ্ছিলেন। এ সময় একজন ছিনতাইকারী তার হাতের ব্যাগটি নিয়ে দৌড় দেয়। অন্তরা রহমানও সেই ছিনতাইকারীর পেছনে ধাওয়া করেন। কিছুদূর গিয়ে সেই ছিনতাইকারী একটি চলন্ত বাসে উঠে পড়লে অন্তরাও পেছন পেছন সেই বাসটিতে উঠে পড়েন।

এ বিষয়ে অন্তরা বলেন, পুরো বাসটি খালি ছিল। আমি বাসে উঠে ড্রাইভারকে জিজ্ঞেস করলাম এখানে একটি লোক উঠেছে কিনা। তারা বলে, আমাদের গাড়িতে ওঠেনাই, হয়তো পেছনের বাসে উঠেছে। কিন্তু পেছনের দিকে বসে থাকা একটি লোকের প্যান্ট দেখে আমার সন্দেহ হলো। কাছে গিয়ে দেখি, সেই ছিনতাইকারী আমার ব্যাগের ওপর বসে আছে আর মোবাইলটা পায়ের নীচে রেখেছে। আমি তাকে ধরে চিৎকার করলেও বাস চালক বাসটি চালিয়ে যাচ্ছিল। চিৎকার শুনে কয়েকজন ছেলে এগিয়ে এসে বাসটি থামায়।

সে সময় সেই চোর বলে আমাকে ছেড়ে দেন, আমি কালকেই কারাগার থেকে ছাড়া পেয়েছিল। কিন্তু আমি মনে করলাম, গতকাল মুক্তি পেয়েই যে আজ অপরাধ করতে পারে, তাকে ছাড়লে সে আরো অপরাধ করবে। তখন সবার সহযোগিতায় তাকে যাত্রাবাড়ী থানায় নিয়ে গেলাম। সেখানে আমি নিজেই বাদী হয়ে একটি মামলাও করলাম।

এ বিষয়ে ডিএমপি কমিশনার মোঃ আসাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ছিনতাইকারী তার ভ্যানিটি ব্যাগ ছিনিয়ে নিয়ে গেলে তিনি নিশ্চুপ না থেকে অত্যন্ত সাহস নিয়ে ছিনতাইকারীকে ধাওয়া করে ধরে পুলিশের নিকট সোপর্দ করেন। যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

অন্তরা বলেন, ‘আমার মনে হয়েছিল, ছিনতাইকারীকে ধরতে হবে, তাকে পুলিশে ধরিয়ে দিতে হবে। কিন্তু আমি কখনো ভাবিনি, সেটা এতদূর হবে। সবার ভালোবাসা দেখে আমার ভেতর অনেক খুশি কাজ করছে।’

অন্তরা আরও বলেন, ‘কিন্তু আমি এ রকমই। ছোটবেলা থেকেই আমাকে কেউ টিজ করলে আমি রুখে দাঁড়াতাম। এ রকম অন্যায় দেখলে আমি আবারও এভাবেই রুখে দাঁড়াব।’

অমৃতবাজার/জয়