ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ জুন ২০১৮ | ৭ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাংলায় সাইনবোর্ড না লেখায় ৫টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৬:৩৭ পিএম, ১৩ মার্চ ২০১৮, মঙ্গলবার
বাংলায় সাইনবোর্ড না লেখায় ৫টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

বাংলায় সাইন বোর্ড না লেখায় রাজধানীর ৫টি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বাংলায় সাইন বোর্ড লেখা নিশ্চিত করতে ডিএনসিসির অঞ্চল-১-এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খালিদ আহম্মেদের নেতৃত্বে বুধবার রাজধানীর উত্তরায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে সাইন বোর্ড বাংলা ভাষায় না লেখায় আজমপুর এলাকার ৫টি প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে মোট ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- শান্তা-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি, রহিম আফরোজ, সি শেল, বাটা এবং আখতার ফার্নিচার। এ সময় প্রতিষ্ঠানের সাইন বোর্ড তাৎক্ষণিকভাবে অপসারণ করা হয়।

হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী সকল প্রতিষ্ঠানের (দূতাবাস, বিদেশী সংস্থা ও তৎসংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র ব্যতীত) নামফলক, সাইন বোর্ড, বিল বোর্ড, ব্যানার ইত্যাদি বাংলায় লেখা বাধ্যতামূলক।

স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে হাইকোর্টের আদেশটি ডিএনসিসি এলাকায় নিশ্চিত করার দায়িত্ব ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষকে দেয়া হয়।

এ প্রেক্ষিতে জানুয়ারি মাসের ২৮ তারিখে দুইটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে ডিএনসিসির এখতিয়ারাধীন এলাকার যেসব প্রতিষ্ঠানের (দূতাবাস, বিদেশী সংস্থা ও তৎসংশ্লিষ্ট ক্ষেত্র ব্যতীত) নামফলক, সাইন বোর্ড, বিল বোর্ড, ব্যানার বাংলায় লেখা হয়নি তা অবিলম্বে স্ব-উদ্যোগে অপসারণ করে ৭ দিনের মধ্যে বাংলায় লিখে প্রতিস্থাপন করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছিল।

এ ছাড়া মাইকিং, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রেস রিলিজ প্রেরণসহ ডিএনসিসির ওয়েবসাইট এবং ফেইসবুক পাতায়ও গণবিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশ করা হয়। প্রায় সব কয়টি প্রধান প্রধান জাতীয় দৈনিকে এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়। হাইকোর্টের আদেশ এবং ডিএনসিসির গণবিজ্ঞপ্তি বাস্তবায়ন না করার অপরাধে প্রতিষ্ঠানগুলোকে জরিমানা করা হয়।

ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকার প্রত্যেকটি নামফলক, সাইন বোর্ড ইত্যাদিতে বাংলা ভাষা নিশ্চিত করতে ডিএনসিসির উচ্ছেদ অভিযান ও ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত থাকবে।-বাসস

অমৃতবাজার/শাওন