ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যানজট নিরসনে বৃত্তাকার রেল প্রকল্প


নিজস্ব সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ০৮:৪৭ এএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৮, বৃহস্পতিবার
যানজট নিরসনে বৃত্তাকার রেল প্রকল্প

রাজধানীর যানজট কমানোর লক্ষ্যে এবার সড়ক পথের বদলে রেল ব্যবহারের পরিকল্পনা নিয়ে আগাতে চাইছে সরকার। পরিবহন বিশেষজ্ঞরাও এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছেন। আরো আগে এই প্রকল্প নিয়ে আগানো উচিত ছিল বলেও মনে করেন তারা।

পরিকল্পনা অনুযায়ী চারপাশে ৯১ কিলোমিটার দীর্ঘ চার লেনের আউটার সার্কুলার রুটের (বৃত্তাকার সড়ক) উপর নির্মিত হবে প্রায় ৮২ কিলোমিটার দীর্ঘ উড়াল এলিভেটেড সার্কুলার রেলওয়ে।

রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন বলেন, ‘ঢাকার চারপাশে সার্কুলার রেল প্রকল্পের জন্য এ মাসেই পরামর্শক নিয়োগ দেয়া হবে। আগামী মাসে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ শুরু হবে।’

বাসের বাইরে প্রথমবারের মতো গণপরিবহনে যুক্ত হতে যাচ্ছে মেট্রোরেল যেটি ২০২১ সালের মধ্যে পুরোপুরি চালুর পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। তবে এটি একটি রুটে হচ্ছে। ফলে নগরীর এর একটি বড় অংশের মানুষই এর ‍সুফল পাবে না।

বিশ্বের জনবহুল নগরগুলোতে যাতায়াতের জন্য বাসের পাশাপাশি রেলের ওপর জোর দেয়া হয়। কিন্তু বাংলাদেশে নগর পরিকল্পনায় সরকারগুলো এতদিন রেলের বিষয়টি বিবেচনায় আনেনি।

এর মধ্যে সার্কুলার রেলটি করবে রেলপথ মন্ত্রণালয়। রেলের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন বলেন, ‘সার্কুলার রেল প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে ঢাকার যানজট অনেকাংশে কমে যাবে।

রেলপত্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রথম ধাপে সমীক্ষার কাজ শেষে হবে আট থেকে নয় মাসে। যদিও এক বছর ৯ মাস সমীক্ষার জন্য সময় বরাদ্দ আছে। কিন্তু মন্ত্রণালয় চাইছে নির্ধারিত সময়ের আগেই সমীক্ষার কাজ শেষ করতে।

গণপরিহন বিশেষজ্ঞদের অভিমত, যানজট নিরসনে খুবই কার্যকর হবে সার্কুলার রুট। শহরের ভেতরে প্রবেশ না করেই যান চলাচলের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

অমৃতবাজার/জয়