ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রেস কর্মচারী ফাঁস করতো ঢাবির প্রশ্নপত্র


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০১:৫৩ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৩:৪২ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
প্রেস কর্মচারী ফাঁস করতো ঢাবির প্রশ্নপত্র

ঢাকার ইন্দিরা রোডের একটি প্রেসের এক কর্মচারীর সহায়তায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে আসছিল। এই চক্রটিকে চিহ্নিত করে গ্রেফতার করেছেন সিআইডি। এই প্রেসে ছাপা হতো ভর্তির সকল প্রশ্ন।

প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। যার মধ্যে গত ৭ ডিসেম্বর থেকে এ পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তাদের মধ্যে পাঁচজন কারাগারে, তিনজন রিমান্ডে এবং দুজন গ্রেফতার আছেন।

আজ রাজধানীর মালিবাগে এক সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম এসব তথ্য দেন।

মোল্যা নজরুল বলেন, সর্বশেষ গতকাল (১৩ ডিসেম্বর) বুধবার জামালপুর থেকে গ্রেফতার করা হয় সাইফুল ইসলামকে। তাঁর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে আজ বৃহস্পতিবার ফার্মগেটের ইন্দিরা রোড থেকে গ্রেফতার করা হয় খান বাহাদুরকে। তিনি এই প্রেসের কর্মচারী। যার মাধ্যমে মূলত প্রশ্ন ফাঁসের সূত্রপাত ঘটে।

মোল্যা জানান, খান বাহাদুররে সঙ্গে পরিচয় ছিল সাইফুল ইসলামের। সাইফুলের সঙ্গে পরিচয় ছিল রকিবুল হাসান নামের আরেকজনের। মূলত এই তিনজনের মাধ্যমে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন বিভিন্ন জায়গায় ছড়ায় যায়। এই তিনজনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২০১৫ ও ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁস হয়েছিল। আর চলতি বছর এই পরীক্ষা নিয়ে ডিজিটাল ভাবে জালিয়াতি করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পুলিশ কর্মকর্তা জানান, এই প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ২ থেকে ৭ লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেন হয়েছিল।

অমৃতবাজার/মিঠু