ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭ | ৭ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

হরতালের প্রভাব নেই রাজধানীতে


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১০:২৪ এএম, ১২ অক্টোবর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
হরতালের প্রভাব নেই রাজধানীতে

রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে চলছে জামায়াতের ডাকা হরতাল। তবে রাজধানীর কোথাও হরতালের প্রভাব দেখা যায়নি। অন্যান্য কর্মদিবসের মতো স্বাভাবিকভাবে চলছে যানবাহন। জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানসহ আট নেতাকে গ্রেফতার ও রিমান্ডের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল-সন্ধ্যা এই হরতালের ডাক দেয় দলটি।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ফার্মগেইট, মতিঝিল, শাহবাগ, মালিবাগ, রামপুরা, বাড্ডা, মহাখালী, ধানমন্ডি, মিরপুর ঘুরে দেখা গেছে এসব রাস্তায় স্বাভাবিকভাবে যানবাহন চলছে। বিভিন্ন সড়কের মোড়ে মোড়ে যানজটও দেখা গেছে। ঢাকা থেকে ছেড়ে যাচ্ছে দূরপাল্লার পরিবহনও। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে যানবাহনও। রাস্তায় বাড়ছে মানুষও। দোকানপাটও খুলতে শুরু করেছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

এ দিকে রাজধানীসহ সারাদেশে এখনও কোথাও কোনো মিছিল-সমাবেশের খবরও পাওয়া যায়নি।

জামায়াতের এই হরতালে জোট শরিক দল বিএনপির সমর্থন মেলেনি। বুধবার বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী বলেন, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জামায়াতের নেতাদের মুক্তি দাবি করে বিবৃতি দিয়েছেন। এ পর্যন্ত বিএনপির কর্মসূচি ছিল এটাই, এর বাইরে কিছু নেই।

এ দিকে হরতালে কোনো ধরণের সহিংসতা হলে কড়া জবাব দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, জামায়াতের হরতাল সহিংস রূপ নিলে উপযুক্ত জবাব দেয়া হবে। তাদের সহিংসতার কোনো পজেটিভ রেজাল্ট নেই।

গত সোমবার ঢাকার উত্তরার একটি বাড়ি থেকে জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার এবং সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানসহ আট নেতাকে গ্রেফতার  করে পুলিশ। তারা রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টির পাঁয়তারার লক্ষ্যে গোপন বৈঠক করছিল বলে পুলিশ জানায়। তবে তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে কদমতলী থানার পুরনো দুটি মামলায়; এর একটি বিশেষ ক্ষমতা আইনে, অন্যটি বিস্ফোরক আইনে। জামায়াতের এই নেতারা প্রত্যেকে ১০ দিনের রিমান্ডে আছেন।

অমৃতবাজার/রেজওয়ান

Loading...