ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাত পোহালেই অভিষেক সমাবর্তন, প্রস্তুত কুবি


মাহফুজ কিশোর, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত: ১০:০০ পিএম, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, রোববার
রাত পোহালেই অভিষেক সমাবর্তন, প্রস্তুত কুবি

রাত পোহালেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) প্রথম সমাবর্তন। সোমবার (২৭ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে রেজিস্টার্ড ২,৮৮৮ শিক্ষার্থী এ সমাবর্তনে অংশগ্রহণ করবেন।

এদের মধ্যে মোট ১৩ জন শিক্ষার্থী ১৪ টি ক্যাটাগরিতে পেতে যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি স্বর্ণপদক। সমাবর্তনকে সামনে রেখে সব ধরনের প্রস্তুতির কাজ শেষ হয়েছে। ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে অংশগ্রাহী গ্র্যাজুয়েটদের পদচারণায় উচ্ছ্বসিত পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় আচার্য ও রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। বিশেষ অতিথি থাকবেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান ড. কাজী শহীদুল্লাহ। সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ডিগ্রিধারীদের উদ্দেশে বক্তব্য প্রদান করবেন। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী।

অনুষ্ঠিতব্য সমাবর্তনকে ঘিরে প্রস্তুতিপর্ব এখন শেষ পর্যায়ে। দীর্ঘদিনের স্বপ্নপূরণে সমাবর্তনীয় উচ্ছ্বাসে তাই ক্যাম্পাস এখন গ্র্যাজুয়েটদের পদচারণায় মুখর। বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনার, মুক্তমঞ্চ, গোলচত্বর, বাবুই চত্বর, কাঁঠালতলা, কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ, ব্যাডমিন্টন কোর্টসহ প্রধান সড়কগুলো এখন গ্র্যাজুয়েটদের দখলে। প্রিয়জনদের সাথে পুরনো দিনের স্মৃতিবিজড়িত জায়গাগুলোতে কালো গাউন গায়ে ক্যামেরাবন্দী হচ্ছেন অনেকে। আকাশপানে কালো হ্যাট ছুঁড়ে দিয়ে আকাশজয়ের ইচ্ছাও দেখাচ্ছেন কেউ কেউ।

সমাবর্তন উপলক্ষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিশ্ববিদ্যালয়কে নতুনভাবে সাজিয়ে তুলছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক ও ভবনের পার্শ্বে দৃষ্টিনন্দন ফুল, মরিচবাতি, ব্যানার, ফেস্টুন, লাইটিংয়ের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে বিরাজ করছে সাজ সাজ রব। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সমাবর্তনস্থল প্রস্তুতির কাজও সম্পন্ন হয়েছে।

সমাবর্তনে অংশগ্রহণকারী ডিগ্রিধারীদের সোমবার (২৭ জানুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর ২টার মধ্যে অনুষ্ঠানস্থলে আসন গ্রহণ করতে হবে। আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ বিকেল আড়াইটার মধ্যে সমাবর্তনস্থলে আসন গ্রহণ করবেন। দুপুর ২টা ৫৫ মিনিটে শোভাযাত্রার মাধ্যমে সমাবর্তনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। বিকেল ৩টায় রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয় চ্যান্সেলরের আগমনের পর জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হবে। ৩টা ৯মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর সমাবর্তন উদ্বোধনের কথা রয়েছে। এরপর পর্যায়ক্রমে কুবি উপাচার্য, ইউজিসি চেয়ারম্যান, শিক্ষা উপমন্ত্রী, সমাবর্তন বক্তা ও সবশেষে সভাপতির ভাষণ প্রদান করবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এছাড়াও রাষ্ট্রপতি শিক্ষার্থীদের ডিগ্রি এবং স্বর্ণপদক প্রদান করবেন। বিকেল ৪টা ০৩ মিনিটে সমাবর্তনের প্রথম পর্বের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে। দ্বিতীয় পর্বে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় পারফর্ম করবে দেশবিখ্যাত গায়ক ও তাঁর ব্যান্ডদল `নগর বাউল`।

বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ সমাবর্তনস্থলে আগত গ্র্যাজুয়েটদের আমন্ত্রণপত্রটি অব্যশই সঙ্গে আনতে হবে। ডিগ্রিধারীদের সাথে জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা পাসপোর্ট সঙ্গে রাখতে বলা হয়েছে। এছাড়া মোবাইল ফোন, হ্যান্ডব্যাগ, ক্যামেরা, পানির বোতল বা অন্যকোন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস সঙ্গে নিয়ে অনুষ্ঠানস্থলে প্রবেশ করা যাবে না। সমাবর্তনস্থলে শুধুমাত্র নিবন্ধিত ডিগ্রিধারী ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ প্রবেশ করতে পারবেন। ডিগ্রিধারীদের সাথে আগত অভিভাবক ও সন্তানেরা ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে প্রশাসনিক ভবন ও অ্যাকাডেমিক ভবনসমূহে অবস্থান করতে পারবেন।
রাত পোহালেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) প্রথম সমাবর্তন।
সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ও সমাবর্তন কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী জানান, প্রথম সমাবর্তনের আয়োজন সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য আমরা বিভিন্ন উপকমিটি গঠন করেছি। প্রতিটি কমিটি সমাবর্তনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে দিনভর কাজ করে যাচ্ছে। আশা করছি একটি সফল সমাবর্তন উপহার দিতে পারব।

২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়টিতে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে সমাবর্তন। সমাবর্তনকে সফল করতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, কুমিল্লা জেলা প্রশাসন, সেনাবাহিনী, পুলিশ, র্যাব, ফায়ার সার্ভিস, রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা সংস্থা ও গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

অমৃতবাজার/এমকে/এমএএন