ঢাকা, সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ | ২৯ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এমপিওভুক্তির প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৪:২৫ পিএম, ২৯ জুন ২০১৯, শনিবার
এমপিওভুক্তির প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

এবার স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করতে যাচ্ছে সরকার। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সংক্রান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছেন।এই প্রস্তাবনা অনুযায়ী দেশের ৪ হাজার ৩১২ টি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা এমপিওভুক্ত করতে প্রয়োজন হবে ৩ শ ১১কোটি টাকা। 

প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদনের পর শিক্ষা মন্ত্রনালয় এমপিওভুক্তির জন্য শিক্ষকদের তালিকা তৈরির কাজ শুরু হচ্ছে। এখন প্রশাসনিক কাজ এগিয়ে রাখা হচ্ছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এসব তথ্য জানান।

উপ শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এ প্রসঙ্গে বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাবনা পাঠিয়েছিলাম। তিনি তা অনুমোদন করেছেন। ইবতেদায়ী মাদ্রাসাগুলোকে এমপিওভুক্ত করতে হলে অনেক টাকা প্রয়োজন। তিনি জানান, এখন আমরা তালিকাভুক্তকরণের কাজ শিগগির শুরু করে দেব।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানান, গত মে মাসের শুরুতে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ থেকে ইবতেদায়ী মাদরাসার এমপিওভুক্তির প্রস্তাবনার সারাংশ তৈরি করে অনুমোদনের জন্য শিক্ষামন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়। 

পরে গত ৯ মে প্রস্তাবনার সারাংশ প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। গত ১২ জুন প্রধানমন্ত্রী এতে অনুমোদন দেন।

অনুমোদিত প্রস্তাবনা অনুযায়ী, এমপিওভুক্তির পর স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসা প্রধান শিক্ষক মাসে ১৪ হাজার টাকা বেতন পাবেন। এছাড়া বৈশাখী ভাতা বাবদ ২৫০০ টাকা ও উৎসব ভাতা ৬ ২৫০ টাকা পাবেন।

এছাড়া জুনিয়র শিক্ষক, মৌলভী এবং কারিরা মাসে বেতন হিসেবে পাবেন ১০ হাজার ৮০০ টাকা। সঙ্গে ঘর ভাড়া ও চিকিৎসা ভাতা হিসেবে পাবেন ১৫০০ টাকা।এছাড়া বৈশাখী ভাতা ১৮৬০ ও উৎসব ভাতা ৪৬৫০ টাকা পাবেন। 

বর্তমানে সারাদেশে তালিকাভুক্ত ৪হাজার ৩ শ ১২টি মাদরাসার মধ্যে ১ হাজার ৫শ ১৮টি মাদরাসার শিক্ষক অল্প পরিমানে সরকারি ভাতা পান। প্রধান শিক্ষকরা মাসে পান ২ হাজার ৫০০ টাকা ও জুনিয়র শিক্ষকদের বেতন ২ হাজার ৩শ টাকা। তালিকাভুক্ত মাদরাসার বাইরে থাকা ২ হাজার ৭শ ৯৩টি মাদরাসা সরকার থেকে কোন ধরণের ভাতা পায় না।

অমৃতবাজার/পিকে