ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘ধর্মীয় জঙ্গিবাদ ও বর্ণবাদ বিশ্বশান্তিকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে’


অনি আতিকুর রহমান, ইবি

প্রকাশিত: ১০:২৮ পিএম, ১৮ মে ২০১৯, শনিবার | আপডেট: ১১:১৮ পিএম, ১৮ মে ২০১৯, শনিবার
‘ধর্মীয় জঙ্গিবাদ ও বর্ণবাদ বিশ্বশান্তিকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে’ চীনে অবস্থানরত ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারী। ছবি :অমৃতবাজার

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারী বলেছেন, জঙ্গিদের আক্রমণে আমরা আফগানিস্তান, ইরাক, ‘সিরিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শনসমূহ নির্মমভাবে ধ্বংস হতে যেতে দেখেছি।

ধর্মীয় জঙ্গিবাদ এবং বর্ণবাদ বিশ্বশান্তিকে হুমকির মুখে ঠেলে দিয়েছে এবং যৌথ ভবিষ্যতের এক মানবসমাজ গড়ার প্রক্রিয়ায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। সুতরাং ধর্মীয় সম্প্রীতির এবং বহুবর্ণের সমন্বিত একটি মানবসম্প্রদায় গড়ে তুলতে আমাদের অবশ্যই এই সঙ্কট মোকাবেলায় মনোযোগ দিতে হবে।’

চীনের বেইজিং লিয়াওনিং ইন্টারন্যাশনাল হোটেলে গত ১৫ ও ১৬ মে অনুষ্ঠিত ‘ডায়ালগ অব এশিয়ান সিভিলাইজেশন’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ‘আন্ডারস্ট্যান্ডিং এশিয়ান সিভিলাইজেশন : টুওয়ার্ডস বিল্ডিং এ্যা গ্লোবাল কমিউনিটি উইথ এ্যা শেয়ারড্ ফিউচার ফর ম্যানকাইন্ড’ বিষয়ক বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নতুন সহস্রাব্দে আমরা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রান্তে অবস্থান করছি। আমরা এমন একটি ক্রসরোডে পৌঁছেছি যেখানে আমাদের জীবনযাত্রা এবং একে অপরের সাথে যোগাযোগের পদ্ধতিতে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে। কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা, স্বচালিত পরিবহন, থ্রি-ডি প্রিন্টিং, ন্যানোটেকনোলজি এবং কোয়ান্টাম কম্পিউটিং-এর মতো অকল্পনীয় প্রযুক্তির আবির্ভাব ঘটেছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রতিক্রিয়ার সাথে সমন্বয় করে আমাদের সামনে এগুতে হবে।

তিনি আরও বলেন, পশ্চিমাদের মতো করে প্রাচ্যকে উপস্থাপন এশিয়ান সভ্যতাগুলো সঠিকভাবে বোঝার ক্ষেত্রে বড় বাধা।

চীনের রাজধানী বেইজিং-এ আয়োজিত এ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দেশটির রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। কম্বোডিয়ার রাজা নরোদম শিয়ামনি, গ্রীসের রাষ্ট্রপ্রধান প্রোকপিক পাভলোপৌলস, সিঙ্গাপুরের রাষ্ট্রপতি হালিমা ইয়াকুব, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি মৈত্রীপাল সিরিসেন, আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী পাসিনিয়ান এবং ইউনেস্কো মহাপরিচালক অড্রে আজুলেই প্রমুখ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

৪৭ দেশের প্রায় ৫শত প্রতিনিধি সম্মেলনে যোগদান করেন, যার মধ্যে বাংলাদেশ থেকে যোগদান করেন দুইজন। আগামীকাল (১৯ মে) ড. আসকারীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

অমৃতবাজার/এআর