ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ | ১২ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে এক শিক্ষার্থীর সনদ স্থগিত


ইবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৭:৪৫ পিএম, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার
ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে এক শিক্ষার্থীর সনদ স্থগিত

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে অপেক্ষামান তালিকা থেকে অর্থের বিনিময়ে ভর্তি করানোর অভিযোগে এক শিক্ষার্থীর সনদ স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের ওই শিক্ষার্থীর নাম রাশেদ পারভেজ নয়ন। সে ইবি ছাত্রলীগের বিগত কমিটির (সাইফুল-অমিত) সহ-সম্পাদক ছিলো বলে জানা গেছে। বুধবার রেজিস্ট্রার অফিসের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী (রোল নং অনার্স ১০১৭০৩৩ এবং মাস্টার্স ১৫১৭৩৭) রাশেদ পারভেজ নয়নের বিরুদ্ধে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের অপেক্ষামান তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের অর্থের বিনিময়ে ভর্তির অভিযোগে প্রকাশিত সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে তার অনার্স ও মাস্টার্স পরীক্ষার সনদসমূহ স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এবং বিষয়টি তদন্তের জন্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করেছেন।

ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমানকে আহ্বায়ক করে গঠিত কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন ও সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক পিন্টু লাল দত্ত (সদস্য সচিব)। কমিটিকে যথাশীঘ্র সম্ভব উপাচার্য বরাবর তদন্ত প্রতিবেদন পেশ করতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, অভিযুক্ত নয়নের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে ভর্তি জালিয়াতি, চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নেয়াসহ একাধিক বিতর্কিত কর্মকান্ডের অভিযোগ রয়েছে।

অমৃতবাজার/অনি/ইকরামুল