ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৮ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রশ্নফাঁস: ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ফল স্থগিত


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০২:৪১ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, সোমবার | আপডেট: ০৪:০৮ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, সোমবার
প্রশ্নফাঁস: ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ফল স্থগিত

প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ স্থগিত করেছে কর্তৃপক্ষ। সোমবার দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। এর আগে বেলা ১১টার দিকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভর্তি পরীক্ষার ফল আগামীকাল মঙ্গলবার দুপুর ১টায় কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হবে।

ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ নিয়ে আজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দুটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়। বেলা ১১টার দিকে উপাচার্য দফতরের অ্যাসাইনমেন্ট অফিসারের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ভর্তি পরীক্ষার ফল আগামীকাল মঙ্গলবার দুপুর ১টায় কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হবে।

দুপুর ১টা ৪ মিনিটে আরেক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, উপাচার্য দফতরের অ্যাসাইনমেন্ট অফিসারের পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তির কার্যক্রম স্থগিত করা হলো। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে যথাসময়ে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে।


গত ১২ অক্টোবর শুক্রবার অনুষ্ঠিত হওয়া ‘ঘ’ ইউনিট ভর্তি পরীক্ষা শুরু হওয়ার ৪৩ মিনিটি আগে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ ওঠে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হাতে লেখা উত্তরপত্রসহ ১০০টি প্রশ্ন সম্বলিত ১৪ পৃষ্ঠার একটি প্রশ্নপত্র সাংবাদিকদের কাছে আসে। পরীক্ষা শেষে আগে থেকে পাওয়া প্রশ্নপত্রের সঙ্গে অনুষ্ঠিত হওয়া প্রশ্নের সঙ্গে ৭২টি প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া যায়।

‘ঘ’ ইউনিটে এ বছর ১৬১৫টি (বিজ্ঞানে- ১১৫২টি, বিজনেস স্টাডিজে- ৪১০, মানবিকে- ৫৩টি) আসনের জন্য ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর সংখ্যা ৯৫,৩৪১ জন।

এই পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস ও ডিজিটাল জালিয়াতির অভিযোগে ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া প্রতারক চক্রের অজ্ঞাত আরো কিছু সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন জাহিদুল ইসলাম (৪৫),ইনসান আলী রকি (১৯), মোস্তাকিম হোসেন (২০), সাদমান সালিদ (২১), তানভির আহমেদ (২১), আবু তালেব (১৯)। এদের সবার বাড়ি বগুড়া জেলায়। তাদেরকে রিমান্ডে পাঠানো হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, সিআইডির সাইবার ক্রাইম টিমের সহায়তায় তাদের আটক করা হয়। গতকাল শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দোয়েল চত্বর এলাকায় সিআইডি পুলিশের এসআই রঞ্জন বিশ্বাসের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেন। পরে তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয় ও গ্রেফতার দেখানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা কামরুল হাসান গতকাল তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, বগুড়ার রাহেমা কম্পিউটার সেন্টারের সাব্বির হোসেন রানা ও জলেশ্বরী তলার কালীবাড়ী মোড়ের গুগল অ্যাডমিশন অ্যান্ড ইনফরমেশন সেন্টারের লাহেদুজ্জামান লিমনসহ প্রতিষ্ঠান দুটির মালিক ও কর্মীরা ডিজিটাল ডিভাইসের মাধ্যমে প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত।

অমৃতবাজার/সুজন