ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮ | ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

আর্থিক সংঙ্কটে ইন্টারনেট সুবিধা পাচ্ছে না হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা


হাবিপ্রবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৮:০২ পিএম, ১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার
আর্থিক সংঙ্কটে ইন্টারনেট সুবিধা পাচ্ছে না হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা

দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে ইন্টারনেট সংযোগ বিড়ম্বনায় চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। বর্তমান ডিজিটাল যুগে উত্তর বঙ্গের একমাত্র বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হওয়া সত্বেও। আর্থিক সংঙ্কটের কারণে মানসম্মত ইন্টারনেট সুবিধা পাচ্ছে না শিক্ষার্থীরা। ফলে শিক্ষার্থীরা তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে পিছিয়ে পড়েছে। আর এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে বিরাজ করছে ক্ষোভ আর হতাশা।

বিশ্ববিদ্যালয়কে ডিজিটালাইজড করার কথা চিন্তা করে প্রশাসন বিশ্ববিদ্যালয়ে ইন্টারনেট ব্যবহার সহজ করার কথা বললেও বাস্তবে তার কোনও লক্ষণ নেই। ফলে ইন্টারনেট সুবিধা থেকে পিছিয়ে পড়ছেন শিক্ষার্থীরা। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির এই যুগে আধুনিক বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলার জন্য ইন্টারনেট সেবার বিকল্প নেই। প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় না হয়েও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চমানের ইন্টারনেট সংযোগের সুবিধা থাকলেও এ সুবিধা থেকে বঞ্চিত আছেন হাবিপ্রবির শিক্ষার্থীরা। এমনটাই অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার লক্ষে ২০১৪ সালে সম্পূর্ণ ক্যাম্পাসকে ওয়াই-ফাই (ইন্টারনেট) নেটওয়ার্কের আওতায় আনে প্রশাসন। কিন্তু কিছুদিন চালানোর পর তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এরপর দীর্ঘ সাড়ে তিন বছর চলে গেলেও তা আর সংযোগ দেওয়া সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে নতুন প্রশাসন আসার পর পুরো ক্যাম্পাসজুড়ে ওয়াই-ফাই জোন করার ঘোষণা দিলেও বাস্তবে তা সীমাবদ্ধ রয়েছে শুধু টিএসসির মধ্যে।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওয়াইফাই সংযোগ চালু করলেও তা সব জায়গায় উন্মুক্ত করা হয়নি। শিক্ষার্থীদের ব্যবহারের জন্য নিদিষ্ট করে শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি চত্বরেই ওয়াইফাই সংযোগ দেওয়া হয়। তাও আবার নিদিষ্ট সময়ের জন্য দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত। এতেও রয়েছে অনেক সীমাবদ্ধতা কেউ কোন ভিডিও ডাউনলোড করতে পারবে না এবং ইউটিউবেও ঢুকতে পারবে না। তাছাড়া মাঝে মাঝে ঠিকমত নেট না পাওয়ার কারণে দূর্ভোগে পড়তে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। আবার হল গুলোতেও নেই কোন ইন্টারনেট সংযোগ। তাই অনেকে বাইরে থেকে ইন্টারনেট সংযোগ নিচ্ছে।

শহীদ জিয়াউর রহমান হলের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মহিদুর রহমান বলেন, "আমাদের হলগুলোতে ওয়াইফাই নেই এজন্য আমাদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। অনেক সময় এমবি কিনলেও হঠাৎ করে এমবি শেষ হয়ে যায়, পরিপূর্ণ তথ্য পেতে সমস্যায় পড়তে হয় শিক্ষার্থীদের। এতে নিয়মিত টাকা দিয়ে এমবি কিনে এসাইনমেন্ট, ইনফরমেশন সংগ্রহ করা অনেকটাই কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে যাচ্ছে।"

ফজিলাতুননেছা মুজিব হলের শিক্ষার্থীর সুমি আক্তার বলেন," "থিসিস, এসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশনসহ অনেক কাজে ইন্টারনেটের প্রয়োজন হয়। দিনের বেলায় ক্যাম্পাসের বিভিন্ন ওয়াইফাই জোনে গিয়ে ইন্টারনেটের সে চাহিদা মেটানো গেলেও রাতে কোনো জরুরি প্রয়োজনে, হলের বাইরে যাওয়ারও উপায় নেই, সেই সঙ্গে মডেমেরও ব্যবহার সবার পক্ষে সম্ভব হয় না। এতে অনেক দিক হতে পিছিয়ে পড়তে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের।"

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ডঃ মো. সফিউল আলমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, "হলগুলোতে ইন্টারনেট সংযোগ প্রদানের যে কথা ছিল তা আর্থিক সংকটের কারনে আমরা কাজ শুরু করতে পারিনি। তবে খুব দ্রুত এ বিষয়ে ভিসি স্যারের সাথে কথা বলব।"

বিশ্ববিদ্যালয়ের নেটওয়ার্ক ইঞ্জিনিয়ার মো. সৈকত আলীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, "হলের নেট সংযোগ নিয়ে কাজ করা হচ্ছে তবে এখনও গ্রীন সিগন্যাল পাওয়া যায়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাজেট না থাকায় মুলত এই সমস্যা হচ্ছে। তবে আশা করি খুব দ্রুত সময়ে আমরা একটা ভাল ফলাফল পাব।"

অমৃতবাজার/রউফ/মিঠু