ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

রাবিতে মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার খেয়ে দুই ছাত্র অসুস্থ, জরিমানা


রাবি প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৮:৪৩ পিএম, ২৪ এপ্রিল ২০১৮, মঙ্গলবার
রাবিতে মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার খেয়ে দুই ছাত্র অসুস্থ, জরিমানা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার রাখা ও বিক্রির অপরাধে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুড কর্নার নামে একটি দোকান মালিককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

খাবার খেয়ে দুই ছাত্র অসুস্থ হওয়ার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেটে এ অভিযান চালানো হয়।

মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার ও পানীয় রাখার অপরাধে ওই দোকানিকে এ জরিমানা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের রাজশাহী বিভাগীয় উপপরিচালক হাসান আল মারুফ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেটের ফুড কর্নারের ওই দোকানির নাম নিজাম উদ্দিন আলম। অসুস্থ দুই ছাত্র হলেন হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের রায়হান কবির ও মেহেদী হাসান।

প্রত্যক্ষদর্শী ও শিক্ষার্থীরা জানায়, গত সোমবার রায়হান ও মেহেদী ফুড কর্নারের খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে আজ কোমল পানীয় কিনতে গিয়ে দেখেন, বোতলের গায়ের তারিখ মেয়াদ উত্তীর্ণ। এর প্রতিবাদ করলে দোকানি উচ্চস্বরে বলেন, ‘ক্যাম্পাসের সবাই যদি খেতে পারে তো আপনাদের খেতে সমস্যা কোথায়?’

ফুড কর্নারের মালিক নিজাম উদ্দিন আলম বলেন, ‘মেয়াদোত্তীর্ণ খাবারগুলো নিচে রাখা ছিল। আর সেগুলো ফ্রিজে পাওয়া গেছে। সেটা আমার জানা ছিল না।’

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের রাজশাহী বিভাগীয় উপপরিচালক মারুফ আল হাসান বলেন, অভিযান চলাকালে জরিমানার পর ওই দোকানির সব মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার নষ্ট করে দেয়া হয়েছে। এমনকি ১০ দিন দোকান বন্ধ রেখে দোকান পরিষ্কার করতে বলা হয়েছে। ১০ দিন পর আবার ওই দোকানে অভিযান চালোনো হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, ‘দুই-তিনজন শিক্ষার্থী আমাদের অভিযোগ করেছিল, ওই দোকান মালিক মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার বিক্রি করছেন। এতে তারা কয়েকজন অসুস্থও হয়েছেন। এ অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আমি সেখানে সহকারী প্রক্টর ও পুলিশ পাঠিয়েছিলাম।’

প্রক্টর বলেন, মেয়াদোত্তীর্ণ খাবার দেখে তারা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর রাজশাহীর মেজিস্ট্রেটকে ডেকেছিলেন। তিনি দোকানিকে নগদ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

অমৃতবাজার/শিহাবুল/শাওন