ঢাকা, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

রাবিতে সান্ধ্যকোর্স বাতিলের দাবি


রাবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৫:৫৯ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | আপডেট: ০৬:০০ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার
রাবিতে সান্ধ্যকোর্স বাতিলের দাবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সকল অনুষদে বাণিজ্যিক সান্ধ্যকোর্স বাতিল ও ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি ফি না বাড়ানোরর দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল ছাত্রজোট। মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে এই স্মারকলিপি দেন ছাত্রজোটের নেতৃবৃন্দ।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, ২০১৪ সাল ও তার আগেও ব্যাপক ছাত্র আন্দোলন উপেক্ষা করে দুই দফায় রাবিতে সান্ধ্যকোর্স চালু করা হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদগুলোর নিয়মিত পাঠ্য কার্যক্রম ব্যাহত হবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের গণতান্ত্রিক চরিত্র হারিয়ে যাবে, এমন আশঙ্কায় শিক্ষার্থীরা সান্দ্যকোর্স বিরোধীতা করেছিল। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আমরা দেখতে পাই এমন আশঙ্কা একবারোই অমুলক নয়। সম্প্রতি সান্ধ্যকোর্সের এক শিক্ষার্থীর হাতে শিক্ষক লাঞ্চনার ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও বিভিন্ন অনুষদের বিভাগসমূহ থেকে শিক্ষার্থীরা সান্ধ্যকোর্সের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী কোর্স প্রতি ৬০টি ক্লাস নেয়ার বাধ্যবাধ্যকতা থাকলেও অনেক শিক্ষক তা করছেন না। ফলস্বরুপ শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনে একটি সুদূরপ্রসারী ক্ষতিকর প্রভাব পড়ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ধারণার সঙ্গে সাংঘর্ষিক হয়ে পড়ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম।

স্মারকলিপিতে স্মাক্ষর করেন বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের পক্ষে সভাপতি তাসবিরুল ইসলাম, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায়, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এ এম শাকিল আহমেদ ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি লিটন দাস।

অমৃতবাজার/শিহাবুল/সাইফুল

Loading...