ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ | ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের প্রতিবাদে মানববন্ধন


রাবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৫:০৪ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৭, রোববার
ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের প্রতিবাদে মানববন্ধন

সংবাদ প্রকাশের জেরে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা এবং ডেইলি স্টারের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি আরাফাত রহমানের ওপর হামলাকারী ছাত্রলীগ নেতার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা। রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধনে বক্তারা মামলা ও বহিষ্কারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
 
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ছাত্রলীগ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন মামলা করেছে। যা সম্পূর্ণ অন্যায়, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও হয়রানিমূলক। হামলা-মামলা করে সত্য প্রকাশে সাংবাদিকদের কলমকে থামানো যাবে না। যত মামলা করুন না কেন আমাদের কলম আরো ধারালো হবে।

বক্তারা বলেন, আরাফাতের ওপর হামলাকারী ছাত্রলীগের দুই নেতাকে নামমাত্র বহিষ্কার করা হয়েছিল। সে ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামিকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ বহিষ্কার করেছিল। কিন্তু সে বহিষ্কারাদেশও প্রত্যাহার করা হয়েছে। ছাত্রলীগ এখন বহিষ্কারের নাটক শুরু করেছে।

রাবি রিপোর্টাস ইউনিটির সভাপতি কায়কোবাদ খানের সভাপতিত্বে এ মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেছেন রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে), রাবি কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোট, রাবি সংসদ ছাত্র ফেডারেশন। সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুস্তাফিজ রনির সঞ্চালনায় ঘণ্টাব্যাপী চলা এ মানববন্ধনে অর্ধশতাধিক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার এসএ টিভির রাজশাহী ব্যুরো প্রধান জিয়াউল গনি সেলিম, ক্যামেরা পারসন আবু সাঈদ এবং দৈনিক যুগান্তরের রাবি প্রতিনিধি ও রাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি (রাবিসাস) হাসান আদিরেব বিরুদ্ধে ৫০০, ৫০১ ও ৫০২ ধারায় মানহানি মামলা করেন রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রবিউল আউয়াল মিল্টন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মুশফিক তাহমিদ তন্ময়।

এছাড়া সাংবাদিকের ওপর হামলাকারী ও হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি হলেন- রাবি শাখা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান কানন। গত শুক্রবার মাহমুদুর রহমান কানন (তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক, বাংলাদেশ ছাত্রীলগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা)-এর উপর আরোপিত বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

অমৃতবাজার/শিহাবুল/সাইফুল

Loading...