ঢাকা, সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

যা থাকছে এবারের বাজেটে


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০২:১৭ পিএম, ১৩ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার
যা থাকছে এবারের বাজেটে

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা বাকি।  বৃহস্পতিবার বিকেলে ৩টায় জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করবেন। এটি দেশের ৪৮তম ও বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদের প্রথম বাজেট। আর অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের প্রথম বাজেট।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রস্তাবিত বাজেটের সম্ভাব্য আকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ৪৯০ কোটি টাকা। এটি চলতি অর্থবছরের মূল বাজেট অপেক্ষা ১১ দশমিক ২৬ এবং সংশোধিত বাজেট অপেক্ষা সাড়ে ১৮ শতাংশ বেশি। এরমধ্যে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আকার হচ্ছে দুই লাখ দুই হাজার ৭২১ কোটি টাকা। ৫ শতাংশ ঘাটতি (টাকার অঙ্কে এক লাখ ৪৫ হাজার ৩৮০ কোটি) ধরে প্রস্তাবিত বাজেটে মোট রাজস্ব প্রাপ্তি ধরা হচ্ছে তিন লাখ ৭৭ হাজার ৮১০ কোটি টাকা। অভ্যন্তরীণ ঋণ ও বৈদেশিক উৎস থেকে ঘাটতি পূরণ করা হবে। এ বাজেটে মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রাক্কলন করা হচ্ছে ৮ দশমিক ২ শতাংশ আর মূল্যস্ম্ফীতি সাড়ে ৫ শতাংশ।

যা থাকছে এবারের বাজেটে-

রাজস্ব আদায়ে করের হার না বাড়িয়ে, করের আওতা বাড়ানোর মাধ্যমে রাজস্ব আদায় বাড়ানো হবে।

বাজেটে রাজস্ব আদায়ের প্রক্রিয়া সহজ করতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) জন্য নতুন করে দিকনির্দেশনা থাকবে।

ভ্যাট আইন কার্যকর করার বিষয়ে দিকনির্দেশনা থাকবে। আইন কার্যকর করতে ভ্যাটের একাধিক স্তর থাকবে।

কাস্টমস আইন ও আয়কর আইনে প্রয়োজনীয় সংশোধন এনে সহজবোধ্য ও ব্যবসায় বান্ধব করা হবে।

সকল আমদানি-রফতানি পণ্য শতভাগ স্ক্যানিং করা হবে।

বাজেটে শিক্ষা খাতের সংস্কার, আর্থিক খাতের সংস্কার, শেয়ার বাজারে সুশাসন ও প্রণোদনা প্রদান বিষয়ে সংস্কারমূলক দিক নির্দেশনা থাকবে।

সূত্র আরো জানায়, আকর্ষণীয় ডিজিটাল পদ্ধতিতে মহান জাতীয় সংসদে বাজেট উপস্থাপন করা হবে। বাজেট বক্তৃতার বর্ধিত সংস্করণ, মূল বাজেট বক্তৃতাসহ অন্যান্য সকল ডকুমেন্ট ওয়েবসাইটে প্রকাশসহ জাতীয় সংসদ হতে সরবরাহ করা হবে।

বাজেটকে আরও অংশগ্রহণমূলক করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইট www.mof.gov.bd-এ বাজেটের সব তথ্যাদি ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যেকোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পাঠ ও সংগ্রহে রাখতে পারবেন। এছাড়া দেশ-বিদেশ থেকে উক্ত ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া (ফিডব্যাক) ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ প্রেরণ করা যাবে।

প্রাপ্ত সকল মতামত ও সুপারিশ বিবেচনা করা হবে। জাতীয় সংসদ কর্তৃক বাজেট অনুমোদনের সময় ও পরে তা কার্যকর করা হবে। 

বাজেট প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সম্প্রতি সাংবাদিকদের বলেন, আগামী বাজেট এমনভাবে প্রণয়ন করা হবে যা সাধারণ মানুষকে স্পর্শ করবে। নানা ধরনের জনকল্যাণমূলক উদ্যোগ থাকবে এই বাজেটে।

অমৃতবাজার/পিকে