ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

প্রস্তাবিত বাজেট ব্যবসাবান্ধব: বিজিএমইএ


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৭:২৮ পিএম, ০৯ জুন ২০১৮, শনিবার
প্রস্তাবিত বাজেট ব্যবসাবান্ধব: বিজিএমইএ

রফতানিমুখি তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে ব্যবসাবান্ধব আখ্যায়িত করে সরকারকে বাজেট বাস্তবায়নের প্রতি মনোযোগ বাড়ানোর আহবান জানিয়েছে।

সংগঠনটি বাজেট প্রস্তাবনায় পোশাকখাতে করপোরেট করহার ১২ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১৫ শতাংশ এবং সবুজ শিল্পায়নের জন্য ১০ থেকে ১২ শতাংশ করার প্রস্তাবের সমালোচনা করে করপোরেট করহার ১০ শতাংশ করার অনুরোধ করেছে। বিজিএমইএ আশা করছে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনার মাধ্যমে করপোরেট করহার ১০ শতাংশ করা যাবে।

শনিবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে বিজিএমইএ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গত বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট পেশ করেন।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, প্রস্তাবিত বাজেট ব্যবসাবান্ধব। তবে পোশাকখাতের জন্য আমরা করপোরেট করহার ১০ শতাংশ করার প্রস্তাব করেছিলাম। সেখানে করহার বাড়ানো হয়েছে। আশা করি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান হবে।

তিনি বলেন, প্রত্যক্ষ রফতানিকারকদের কাছ থেকে উৎসে কর কাটা হচ্ছে। সেইসাথে একই রফতানি এলসির বিপরীতে প্রচ্ছন্ন রফতানিকারকদের যেমন সূতা, কাপড়, এক্সেসরিজ সরবরাহকারীদের থেকেও একই হারে উৎসে কর কর্তন করা হচ্ছে। এটি কোনভাবেই যুক্তিসঙ্গত নয়। আমরা পোশাক রফতানির ওপর উৎসে কর আগামী ৩ বছরের জন্য সম্পূর্নভাবে প্রত্যাহার চাই। সংগঠনটি তৈরি পোশাক খাতকে সম্পূর্নরুপে মূল্য সংযোজন করের (মূসক) আওতামূক্ত রাখার দাবি জানান।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন বলেন, গ্যাস, বিদ্যুৎ ও পানির ওপর প্রদত্ত মূসক প্রত্যর্পনের ক্ষেত্রে জটিলতা দূর এবং স্থানীয়ভাবে সংগৃহীত রফতানি সংশ্লিষ্ট সকল পণ্য ও সেবার ক্ষেত্রে ভ্যাট মওকূফসহ রিটার্ন দাখিল করা হতে অব্যাহতি দিতে পোশাক খাতকে সম্পূর্ণরুপে মূসক মুক্ত রাখতে হবে।

প্রস্তাবিত বাজেটে বিদ্যুৎ ও জ্বালানীখাতে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ায় সংগঠনের পক্ষ থেকে সরকারকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

অমৃতবাজার/শাওন