ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

সীতাকুণ্ডে আমনের বাম্পার ফলন


চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০১:৪৭ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার
সীতাকুণ্ডে আমনের বাম্পার ফলন

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে একটি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে খারাপ আবাহাওয়ার মধ্যেও আমনের বাম্পার ফলন। এর ফলে ঘুরে দাঁড়িয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা। গত কয়েকমাসে টানা কয়েকবার বৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধতায় ফসলি জমিসহ ডুবে যায় বসতি ঘর। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কৃষকরা।

টানা কয়েকবার ফসলি জমি নষ্ট হয়ে যাওয়ায় হতাশায় ডুবে পড়ে কৃষকরা। এতে অনেকে বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যাংক থেকে টাকা লোন নিয়ে চাষ করায় ফসলী জমি বার বার নষ্ট হয়ে যাওয়াতে হতাশা আর মাথায় হাত দিয়ে বসে থাকা আর কিছুই করার ছিলনা। তবে আমনে চাষে ফিরে তাকাতে হয়নি কৃষকদের। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় বাম্পার ফলন হয়েছে আমন ধানে। এতে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক এবারের ফলন থেকে কিছুটা হলেও ঘুরে দাড়াতে সক্ষম হয়েছে। হেমন্তের পাকা ধানে ভরপুর জমির ধানকাটা কিছু কিছু জায়গায় কাটা হলেও পুরোদমে শুরু হতে আরো সময় লাগবে ১০/১৫ দিন।

সীতাকুণ্ড কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার ১৬ হাজার ৬ শত ৫০ জন কৃষক ৫৩৫০ হেক্টর জমিতে রোপা আমনের চাষ করেছে।

সৈয়দপুর ইউনিয়নের কৃষক আইয়ুব খান জানান, এবারের ফলন গতবারের চেয়ে অনেক ভালো হয়েছে। আশা করে ভাল একটা ফলাফল আসবে। আমি এবার ১৬০ শতক জমিতে আমনের চাষ করেছি। সব জমিতে ভাল ফলন হয়েছে।

কথা হয় আরেক কৃষক শিবপুরের জামাল উল্যাহ সাথে, এবারের ফলন অনেক ভাল হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমি ১৪০ শতক জমিতে আমনের চাষ করেছি। ফলন দেখে মনে হচ্ছে গতবারের চেয়ে এবারের ফলন ভাল হয়েছে।

বাঁশবাড়ীয়া এলাকার কৃষক মো: হারুন মিয়া জানান, এবার ফলনও ভাল, দামও ভাল। এবার বাজারে তোলা আমন ধান বস্তা প্রতি ১২শ থেকে ১৩শ ৫০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে বলে জানান এই কৃষক।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুশান্ত শাহা বলেন, এবার সীতাকুণ্ড পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে ৫৩৫০ হেক্টর জমিতে রোপা আমনের চাষ হয়। আবহাওয়া ঠিক থাকায় প্রায় পুরো উপজেলায় আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। যা গতবারের চেয়ে এবার লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে মনে হচ্ছে।

অমৃতবাজার/দিদারুল/মাসুদ

Loading...