ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১১ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরের উন্নয়ন এখন দ্বিপাক্ষিক দাবি


সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৫:১৮ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার
সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরের উন্নয়ন এখন দ্বিপাক্ষিক দাবি

‌‌‌সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরের মান উন্নয়ন কেবলমাত্র জাতীয় নয় তা দ্বিপাক্ষিক দাবি উল্লেখ করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে আগামীতে যে কয়টি বন্দর অধিক গুরুত্ব লাভ করবে ভোমরা স্থলবন্দর তার মধ্যে একটি। এই বন্দরের রাজস্ব সুরক্ষা একটি বড় চ্যালেঞ্জ মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সরকার সব ধরনের প্রকল্প গ্রহন করবে। দেশের দক্ষিনাঞ্চলের পুরনো কালের অনেক রাস্তা বেয়ে প্রতিদিন পশ্চিম সীমান্তে সর্বশেষ এই বন্দর ভোমরা বন্দর নিয়ে সরকার অনেককিছু ভাবছে।

তিনি আজ মঙ্গলবার বিকেলে সাতক্ষীরার ভোমরা বন্দর সিএ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে সকল পর্যায়ের অংশীজনদের সাথে মতবিনিময় কালে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ভোমরা বন্দরের সুপ্ত সম্ভাবনাকে উন্মুক্ত করে দিতে হবে। এজন্য এখানে অচিরেই কাস্টমস হাউজ নির্মিত হবে এবং একটি পূর্নাঙ্গ বন্দরে উন্নীত হবে। তিনি আরও বলেন, ভোমরা বন্দরের রাজস্ব আয় সরকারকে উৎসাহিত করেছে। এজন্য বাংলাদেশ ও ভারত বহুমাত্রিক পরিকল্পনার মধ্য দিয়ে এই বন্দরকে এগিয়ে নিয়ে যাবে।

খুলনা ভ্যাট কমিশনার এর কমিশনার কেএম ওহিদুল আলমের সভাপতিত্বে মত বিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, সহকারী কমিশনার জুয়েল আহমেদ, সহকারী কমিশনার বোরহান আহমেদ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড সদস্য লুৎফর রহমান ও খন্দকার আমিনুর রহমান, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন, ৩৮ বিজিবি ব্যাটেলিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল আরমান, ভারতীয় কাস্টমস প্রতিনিধি সহকারী কমিশনার পিকে জিনহা, সিএ্যান্ডএফ এজেন্টস এসোসিয়েশন সভাপতি কাজী নওশাদ দিলওয়ার রাজু, সাতক্ষীরা শিল্প ও বনিক সমিতির সভাপতি নাসিম ফারুক খান মিঠু প্রমুখ।

পরে রাজস্ব বোর্ড চেয়ারম্যান ভোমরা বন্দরের বিভিন্ন অবকাঠামো পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি আরও বলেন, এই বন্দরের রাজস্ব আয় অত্যন্ত আশাপ্রদ। এজন্য এখানে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সুযোগ সুবিধার ব্যবস্থা করা হবে।

অমৃতবাজার/ফারুক/মিঠু