ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭ | ৭ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বাজারের অস্থিরতা এখনো কমেনি


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০২:০৮ পিএম, ১০ অক্টোবর ২০১৭, মঙ্গলবার
বাজারের অস্থিরতা এখনো কমেনি

বেড়েই চলছে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম। এ যেন কিছুতেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। যতদিন যাচ্ছে নিত্যপণ্যের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে চলে গেছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত কয়েকদিনে চালের দাম কিছুটা কমলেও এখনও চড়া মূল্যেই বিক্রি হচ্ছে। চালের বাজারের অস্থিরতায় সাধারণ মানুষ চ্যাপ্টা হয়ে গেছে। নতুন করে এবার চালের উচ্চমূল্যের প্রভাব পড়েছে সবজি ও মাছের ওপর। কেননা গত এক সপ্তাহে হাতে গোনা দুই একটি সবজি ছাড়া সবগুলোর দাম বেড়েছে কয়েকগুণ।

এই মুহূর্তে বাজারে সবচেয়ে বেশি দাম কাঁচামরিচের। গত সপ্তাহে প্রতি কেজি কাঁচামরিচ ১৫০ টাকা বিক্রি হলেও চলতি সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকায়। খুচরা বাজারে কোথাও কোথাও প্রতি কেজি কাঁচা মরিচের দাম ৩০০ টাকা পর্যন্ত হাঁকছেন বিক্রেতারা।

এ ছাড়া প্রতি কেজি চিচিঙ্গা ৬০, করলা ৬০, টমেটো ১৪০, ধুন্দুল ৪০ ও প্রতি কেজি মুলা ৬০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। লাউ প্রতি পিস ৩০-৫০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৬০, লালশাক প্রতি আঁটি ৩০, ডাঁটাশাক ৩০, কলমিশাক ২০, পুঁইশাক ৬০ ও পাটশাক ১৫ টাকা আঁটি দরে বিক্রি হয়েছে।

চালসহ নিত্যপণ্যের এই ব্যাপক দরবৃদ্ধির প্রভাবে সবচেয়ে বেশি বেকায়দায় পড়েছে মধ্যবিত্ত ও নিম্নআয়ের মানুষ। এদের অনেকেই দরাদরি করতে গিয়ে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা-কাটাকাটিতেও জড়িয়ে পড়ছেন।

রাজধানীর কাওরান বাজারে গিয়ে কথা হয় জয়ের সাথে। তিনি অমৃতবাজারকে বলেন, কিছুই কেনার মতো নেই। কিভাবে কিনবো? সব জিনিসের এতো দাম। আমরা পড়ছি গ্যাড়াকলে। না, শান্তিমতো থাকতে পারছি, না আয় বাড়াতে পারছি। কেউ তো দেখার নাই।

এ বছর কোরবানির ঈদের পর কোনো কারণ ছাড়া হঠাৎ করেই অস্থির হয়ে উঠেছে দেশের চালের বাজার। মাত্র কয়েক সপ্তাহের ব্যবধানে বেপরোয়া সিন্ডিকেটে সব ধরনের চালের দাম কেজিতে বেড়েছে প্রায় ১০ টাকা। তবে এই দাম বাড়ার নানা কারণ দেখালেও সদুত্তর দিতে পারছেন না ব্যবসায়ী, আড়তদার ও মিল মালিকরা।

গত ৩ সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীতে মোটা চালের দাম কেজি প্রতি ৪ থেকে ৬ টাকা কমে এখন বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকায়। তবে এখনও অপরিবর্তিত রয়েছে চিকন চালের দাম। প্রতি কেজি চিকন চাল খুচরা বাজারে এখনও বিক্রি হচ্ছে ৬৫-৬৭ টাকায়।

বিক্রেতারা জানান, আড়তদাররা দাম বাড়িয়েছে, সে কারণে খুচরা বাজারে চালের দাম বেড়েছে। মিলাররা চাল ছাড়ছে না, বাজারে চালের সরবরাহ কম। এসব কারণে নতুন করে চালের দাম বেড়েছে। এ ছাড়া বাজারে কঠোর মনিটরিং প্রয়োজন বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা।

অমৃতবাজার/অনির্বান

Loading...