ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১১ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ধান ক্রয়ের লটারিতেও অনিয়মের কথা অকপটে জানালেন খাদ্যমন্ত্রী


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০১:৩৬ পিএম, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, সোমবার
ধান ক্রয়ের লটারিতেও অনিয়মের কথা অকপটে জানালেন খাদ্যমন্ত্রী

কৃষক বাঁচলে দেশ বাঁচবে, পেট ভরা থাকলে মাথা ঠাণ্ডা থাকবে। কথা ছিলো প্রতিটি উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মাঠে গিয়ে কে কতখানি জমি আবাদ করলো একমাত্র তাদেরই তালিকা হবে এবং সেই তালিকার উপরেই লটারি করে ধান ক্রয় করা হবে। কিন্তু এবার আমরা যেটা দেখেছি সেটা কিন্তু হয়নি।

রোববার দুপুরে বগুড়া সার্কিট হাউজে জেলার সকল উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা, হাসকিন মিলারদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

তিনি বলেন, ৫-৭ বছর আগে কৃষকরা যে ১০ টাকা দিয়ে যে কার্ড করে রেখেছিলো সেই তালিকাগুলোই দিয়ে দিয়েছে। যেগুলোতে দেখা গেছে অনেকে কৃষকই নয়, কেউ কেউ কৃষিকর্মী অথবা সে ব্যবসা করে, অনেকে মারাও গেছে। এমন লোকের তালিকাও গেছে। এটাই লটারি করে বিড়ম্বনা হয়েছে এবং দায়টা আমাদের এসে পড়েছে।

খাদ্যমন্ত্রী জানান, এসব অনিয়ম রোধে খাদ্যগুদামে সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে। মুজিববর্ষেই দেশের প্রতিটি খাদ্য গুদামে সিসিটিভি লাগাতে কাজ করছে সরকার। পাশাপাশি আগামী বোরো মৌসুমে ধান ক্রয়ে শতভাগ অ্যাপস ব্যবহার করা হবে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, সিসিটিভির মাধ্যমে জেলা প্রশাসকরা ঘরে বসেই ধান ক্রয় মনিটরিং করতে পারবেন। ফলে দেশের কৃষক ধান বিক্রি করতে গিয়ে খাদ্য গুদামে যে বিড়ম্বনায় পড়েন তা অনেকটাই লাঘব হবে বলে তিনি মনে করেন।

এ সময় বগুড়া-৫ আসনের এমপি হাবিবুর রহমান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুকবুল হোসেন, জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহম্মেদ, পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঁইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, জেলা খাদ্য কর্মকর্তা ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক উপস্থিত ছিলেন।

অমৃতবাজার/আরইউ