ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এড়িয়ে গেলেন তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গ


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৮:৫১ এএম, ২৭ মে ২০১৮, রোববার
এড়িয়ে গেলেন তিস্তা চুক্তি প্রসঙ্গ

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে প্রায় এক ঘণ্টার বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার সন্ধ্যায় কলকাতার তাজ বেঙ্গল হোটেলে এ বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে বেরোতেই সাংবাদিকরা মমতার কাছে জানতে চান বৈঠকে কী হল?

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, দুই বাংলার নানা ইস্যুতে সফল ও ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। এ সময় সাংবাদিকরা জানতে চান- তিস্তা নদীর পানিবণ্টন চুক্তি নিয়ে কোনো আলোচনা হয়েছে কিনা? এ প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান মমতা। বলেন, ‘দুই বাংলার উন্নয়ন ঘিরে সব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’

মমতা সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে কোনো রাজনৈতিক সীমানা আছে বলে আমার জানা নেই। তাই আজ দুই দেশের সম্পর্ক উন্নতি করা নিয়ে আমাদের বিস্তারিত কথা হয়েছে। দু’দেশের সব বিষয় নিয়ে আমরা সব সময়ই তো কথা বলি। সম্পর্ক ভালো হোক, এ দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই এদিনও আমাদের অনেক আলোচনা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও সীমান্ত সমস্যা নিয়েও কথা হয়েছে।’

শেখ হাসিনার সঙ্গে মধুর ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে মমতা বলেন, ‘একটা ‘ওপেন ইনভাইটেশন’ রয়েছে আমাদের মধ্যে। আমরা দু’জনেই দু’জনকে ভালোবাসি। যখনই দরকার হয় তখনই কথা বলি। ওনারা ওপারে ভালো আছেন। ভালো করছেন। আমি চাই ওরা আরো উন্নতি করুক।’ সরাসরি না বললেও আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জিতে ফের বাংলাদেশের শাসন ক্ষমতায় শেখ হাসিনা ফিরে আসুক তা মনেপ্রাণে চান মমতা।

মমতা বলেন, ‘ঢাকা সফরে ফের যাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমায় আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। আমিও তাকে ফের কলকাতা আসতে আমন্ত্রণ করেছি। আসলে আমাদের সম্পর্ক বহু বছরের। এমনকি তিনি যখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন না তখনও আমাদের মধ্যে যোগাযোগ ছিল।’

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, বৈঠকে শেখ হাসিনা কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি.লিট ডিগ্রি অর্জন করায় মমতা ব্যানার্জি তাকে অভিনন্দন জানান। পশ্চিমবঙ্গ সফর এবং বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ও কাজী নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্যও তাকে ধন্যবাদ জানান মমতা।

পরে শেখ হাসিনা ও তার সফর সঙ্গীরা হাসিমুখে হোটেল ছাড়েন। শেখ হাসিনার মুখেও ছিল হাসি। ভারতীয় সময় রাত ৯টায় (বাংলাদেশে সাড়ে ৯টা) কলকাতা ছাড়ে শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিশেষ বিমান। রাত সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমান ঢাকায় শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে।

অমৃতবাজার/জয়