ঢাকা, শনিবার, ২৩ জুন ২০১৮ | ৯ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশে বিনিয়োগ সম্ভাবনা বাড়ছে: ইইউ প্রতিনিধি দল


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৮:৩৮ পিএম, ১৩ মার্চ ২০১৮, মঙ্গলবার
বাংলাদেশে বিনিয়োগ সম্ভাবনা বাড়ছে: ইইউ প্রতিনিধি দল

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ) প্রতিনিধিরা বলেছেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগ সম্ভাবনা বাড়ছে। এখানে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন সরাসরি বিনিয়োগে আগ্রহী।

বুধবার সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র নেতৃবৃন্দের সঙ্গে চেম্বার হলরুমে আয়োজিত ইইউ প্রতিনিধিদলের এক মতবিনিময় সভায় প্রতিনিধিদল প্রধান কনস্টানটিনস ভার্ডাকিস বলেন, ‘বাংলাদেশ খুবই সম্ভাবনার দেশ। এখানে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা ও সম্ভাবনা রয়েছে। সরাসরি বিনিয়োগ করার জন্য আমরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। অনেক চ্যালেঞ্জ থাকা সত্ত্বেও সিলেটসহ বাংলাদেশে বিনিয়োগের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এসব সম্ভাবনা কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশের অর্থনীতি আরও সমৃদ্ধ হবে।’

সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদের সভাপতিত্বে আলোচনায় আরো অংশ নেন জার্মান দূতাবাসের ডেপুটি হেড অব মিশন মাইকেল শুলতেইস, ইইউ ডেলিগেশন টু বাংলাদেশের ট্রেড এডভাইজার আবু সৈয়দ বেলাল।

কনস্টানটিনস ভার্ডাকিস বলেন, ‘বাংলাদেশের সাথে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সম্পর্ক খুবই চমৎকার। ইইউ বাংলদেশের অন্যতম বাণিজ্যিক অংশীদার। প্রতিবছর বিপুল পরিমান পণ্য বাংলাদেশ এবং ইইউ’র মধ্যে আমদানি-রপ্তানি হয়। বিশেষ করে বাংলাদেশ থেকে গার্মেন্ট্স প্রোডাক্ট ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে রপ্তানি হয়। কিন্তু ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সাথে বাংলাদেশের ব্যাপক বাণিজ্যিক বৈষম্য রয়েছে। এই বৈষম্য দূরীকরণে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের সাথেও আলোচনা করছি।’

তিনি জানান, ২০১৬ সালে দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য ছিল ১৯ বিলিয়ন ইউরো। রফতানি যাতে আরো বৃদ্ধি পায় সেই লক্ষ্যে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন।

মহিলাদের কর্মসংস্থান এবং নারীদের ক্ষমতায়ন বৃদ্ধির প্রশংসা করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে এগুচ্ছে।

মাইকেল শুলতেইস বলেন, জার্মান বাংলাদেশি পণ্যের অন্যতম বৃহত্তম বাজার। বাংলাদেশি পণ্যের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

তিনি বলেন, সিলেট অঞ্চল চায়ের জন্য বিখ্যাত। এখানে আইটি ও ট্যুরিজমের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এক্ষেত্রে কিছু চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, সিলেট অঞ্চল শিল্প এবং বিনিয়োগের অন্যতম সম্ভাবনাময় এলাকা। তিনি সিলেটে স্থাপিতব্য বাংলাদেশের প্রথম শ্রীহট্ট ইকোনমিক জোন ও হাইটেক পার্কে সরাসরি বিনিয়োগ করার জন্য ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের প্রতি আহবান জানান।

এ সময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের জিএম জীবন কৃষ্ণ রায়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ড. এম. ইকবাল, সিলেট চেম্বারের সহ-সভাপতি মো. এমদাদ হোসেন, এম. আহমেদ টি এন্ড ল্যান্ড্স কোম্পানীর পরিচালক ও সিলেট চেম্বারের সাবেক পরিচালক তেহসিন চৌধুরী।-বাসস

অমৃতবাজার/শাওন