ঢাকা, শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ | ৪ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

শুরু হলো বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:২৪ এএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৮, শুক্রবার | আপডেট: ০৯:৫৮ এএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৮, শুক্রবার
শুরু হলো বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগতীরে আজ শুক্রবার বাদ ফজর আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হলো বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। তবে ইতোমধ্যে আসা দেশি-বিদেশি মুসল্লিদের জন্য গতকাল ফজরের পর থেকেই প্রস্তুতিমূলক বয়ান শুরু হয়।

বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে দেশবাসী ও মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি ও কল্যাণ এবং দেশের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আগামী রোববার জোহরের নামাজের আগে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ইজতেমার প্রথম পর্ব। এরপর আগামী ১৯ জানুয়ারি শুরু হবে দ্বিতীয় পর্ব। ২১ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে এ বছরের বিশ্ব ইজতেমা।

কনকনে শীত ও হিমেল হাওয়া উপেক্ষা করেই মুসল্লিরা ইজতেমা ময়দানে অবস্থান নিতে শুরু করেছেন।

ইজতেমার শীর্ষ মুরব্বি গিয়াস উদ্দিন জানান, ইজতেমায় দুই পর্বে ২৭ জেলার মুসল্লিরা অংশ নেবেন। প্রথম পর্বে ১৪ জেলা ও দ্বিতীয় পর্বে ১৪ জেলার মুসল্লিরা অংশ নেবেন; এর মধ্যে ঢাকার মুসল্লিরা দুই পর্বেই অংশ নেবেন। বাকি ৩৭ জেলার মুসল্লিরা এ বছর নিজ নিজ জেলায় আঞ্চলিক ইজতেমায় অংশ নেবেন।

র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আনোয়ার লতিফ খান জানান, ইজতেমার কার্যক্রম যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়, সে জন্য অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে র‍্যাব নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সম্ভাব্য সব ঝুঁকি পর্যালোচনা করে নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে তাঁরা।

প্রথম পর্বে ১৪ জেলার মুসল্লিদের জন্য ২৮ খিত্তা

ইজতেমা ময়দানে প্রতি জেলার মুসল্লিদের অবস্থানের জন্য আলাদা স্থানকে খিত্তা বলে। ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী জেলাগুলোর খিত্তা হলো ঢাকা (১ থেকে ৮, ১৬, ১৮, ২০ ও ২১ নম্বর), নারায়ণগঞ্জ (১২ ও ১৯), মাদারীপুর (১৫), গাইবান্ধা (১৩), শেরপুর (১১), লক্ষ্মীপুর (২২ ও ২৩), ভোলা (২৫ ও ২৬), ঝালকাঠি (২৪), পটুয়াখালী (২৮), নড়াইল (১৭), মাগুরা (২৭), পঞ্চগড় (৯), নীলফামারী (১০) ও নাটোর (১৪)।


অমৃতবাজার/মাসুদ